Connect with us

স্বাস্থ্য

থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্তদের তথ্য কেন এনআইডিতে নয়, হাইকোর্টের রুল

Published

on

কেউ থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত হলে সেই তথ্য কেন তার জাতীয় পরিচয়পত্রে যুক্ত করা হবে না, তা জানতে চেয়েছে হাই কোর্ট।

সেই সঙ্গে থ্যালেসেমিয়া রোগের বাহক নির্ণয়ের বিষয়ে সরকারকে নীতিমালা করার নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, তাও জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে।

এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাই কোর্ট বেঞ্চ রোববার এ রুল জারি করে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব, স্বাস্থ্য সচিব, আইন সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, নির্বাচন কমিশন, স্বাস্থ্যসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের সভাপতিকে চার সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অরবিন্দ কুমার রায়।

আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ বলেন, থ্যালাসেমিয়া বংশগত ও রক্ত সম্পর্কিত রোগ। দেশের ৭ শতাংশ মানুষ, অর্থাৎ দেড় কোটি লোক থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত।

“একজন থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত রোগীকে বাঁচিয়ে রাখতে মাসে পাঁচ থেকে ছয় বার রক্ত দিতে হয়। এটা নিরাময়যোগ্য রোগ নয়। বংশানুক্রমে এই রোগ বৃদ্ধি পায়।”

জিনগত ত্রুটির কারণে থ্যালাসেমিয়া

Advertisement
Click to comment

ক্যারিয়ার

জনস্বাস্থ্য ডেন্টিস্ট্রি বিভাগে পদসৃজন -(নিপসম)

Published

on

জনস্বাস্থ্য ডেন্টিস্ট্রি বিভাগে পদসৃজনঃ

ডেন্টাল পাবলিক হেলথ বিডিএস কারিকুলামে অন্তর্ভূক্ত থাকলেও জাতীয় পর্যায়ে গবেষণা ও বিশেষজ্ঞ তৈরীর ক্ষেত্রে এই বিষয়টি বহুকালব্যাপী অবহেলিত অবস্থায় ছিল।

এর অবসান ঘটিয়ে ১৭ ই জুলাই ২০২২ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ একটি জিও(সরকারী আদেশ) প্রকাশ করে যেখানে “জনস্বাস্থ্য ডেন্টিস্ট্রি” বিভাগ এবং সেই বিভাগে “সহকারী অধ্যাপক” ও “প্রভাষক” এর পদসৃজন এর বিষয়টি উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে ঢাকা ডেন্টাল কলেজ এর অধ্যক্ষ ও বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির মহাসচিব জনাব হুমায়ূন কবীর বুলবুল ডেন্টাল টাইমসকে জানান – “বাংলাদেশ ডেন্টাল সোসাইটির অংগীকার ও প্রতিশ্রুতি ছিল ডেন্টাল পাবলিক হেলথ বিষয়টিকে নিপসমে ডিপার্টমেন্ট হিসাবে প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে জাতীয় গবেষণায় অন্তর্ভূক্ত করা৷ এরই অংশ হিসেবে আমরা নিপসম এর সম্মানিত পরিচালক অধ্যাপক (ডাঃ) বায়েজীদ খুরশীদ রিয়াজের সঙ্গে বিষয়টি আলোচনা করে কোর্স কারিকুলামের প্রস্তাবনাও প্রদান করি৷ দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় অবশেষে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর ও বিভাগ (স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়), জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও অর্থ মন্ত্রণালয় এর সম্মতিতে জনস্বাস্থ্য ডেন্টিস্ট্রির পদসৃজন হয়েছে।

আমি মনে করি আমাদের ডেন্টাল সার্জনদের জন্যে বিষয়টি অত্যন্ত আনন্দের এবং গর্বের। আপাতত ডেন্টাল পাবলিক হেলথ ডিপার্টমেন্ট চালু হলেও ভবিষ্যতে প্রস্তাবিত নিপসম বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়িত হলে ডেন্টাল পাবলিক হেলথ একটি অনুষদ হিসাবে প্রতিষ্ঠা পাবে বলে পরিচালক মহোদয় আমাদের আশাবাদ প্রদান করেছেনএবং তাতে খুলে যাবে ডেন্টাল প্রফেশনে নতুন সম্ভাবনার দুয়ার৷ “

উল্লেখ্য, নিপসমে বর্তমানে ৯ টি বিষয়ে মাস্টার্স ইন পাবলিক হেলথ কোর্সটি চলমান রয়েছে৷ যেগুলো হলো –
১) Health Service Management & Policy
২) Hospital Management
৩) Community Medicine
৪) Epidemiology
৫) Reproductive & Child Health
৬) Health Promotion & Health Education
৭) Reproductive & Child Health
৮) Occupational & Environmental health.
৯) Non-Communicable Disease

এছাড়াও অধ্যাপক ডাঃ হুমায়ূন কবীর বুলবুল ডেন্টাল টাইমসকে জানান, ঢাকা ডেন্টাল কলেজ সহ সরকারী মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটসমূহেও ইতিপূর্বে আমরা ডেন্টাল পাবলিক হেলথ বিভাগের পদসৃজন করেছি।

Continue Reading

ঢাকা

ময়মনিসংহ মেডিকেল হাসপাতালের ওএমএস বিভাগে নেই এনেসথেসিয়া

Published

on

২০১২ সালে প্রতিষ্ঠা লাভ করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিট। ২০২২ সাল নাগাদ ১০ বছরে পদার্পন করেও ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী বিভাগে “ওয়ার্ড” সংযুক্ত হয় নি হাসপাতালটিতে। নেই দক্ষ জনবল।

ডেন্টাল বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ একটি বিভাগ হলো ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী বিভাগ। যেটিতে দূর্ঘটনাজনিত চোয়াল ভাঙাসহ মুখের অন্যান্য ভাঙা হাড়ের চিকিৎসা, সিস্ট ও টিউমারের জটিল অপারেশনসহ জনসাধারণ নানাবিধ সেবা পেয়ে থাকে।

ওরাল এন্ড ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারী বিভাগের এই সেবাসমূহের জন্যে প্রয়োজন নারী ও পুরুষের পৃথক পৃথক ওয়ার্ড. দক্ষ জনবল এবং এনেসথেসিয়া সুবিধা। যেটির কোনটিরই সরবরাহ নেই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে।

এবিষয়ে কথা বলতে চাইলে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিট এর ইউনিট প্রধান ডা. মো: মনোয়ারুল ইসলাম ডেন্টাল টাইমসকে জানান- “আমাদের দক্ষ জনবল নেই, ওয়ার্ড নেই। আমরা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছি। কিন্তু কবে নাগাদ এটি সমাধান হবে এ বিষয়ে আমার ধারনা নেই।”

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এর পরিচালক ব্রিগে. জেন. মো. গোলাম কিবরিয়া ডেন্টাল টাইমসকে জানান – “বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

Continue Reading

করোনা পরিস্থিতি

মলনুপিরাভিরঃ কোভিডের ১ম মুখে খাওয়ার ঔষধ এখন বাংলাদেশে

Published

on

বাংলাদেশের বাজারে এসেছে কোভিড চিকিৎসায় মুখে খাওয়ার প্রথম ঔষধ মলনুপিরাভির।

বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস এই ঔষধটি ‘এমোরিভির ২০০’ নামে মঙ্গলবারই বাজারে এনেছে।

এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালসের বরাত দিয়ে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর বলছে, বুধবার নাগাদ তাদের তৈরি মলনুপিরাভির বাজারে চলে আসবে।

আর স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস জানিয়েছে, তারা দু-তিনদিনের মধ্যেই ঔষধটি বাজারে নিয়ে আসতে পারবে।

স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালসের বিপনন বিভাগের পরিচালক আহমেদ কামরুল আলম জানিয়েছেন, তারা প্রতিটি পিলের দাম ৫০ থেকে ৭০ টাকার মধ্যে রাখবেন বলে পরিকল্পনা করছেন।

তিনটি প্রতিষ্ঠানকেই মলনুপিরাভির উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের অনুমোদন এরই মধ্যে দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে ঔষধটির জরুরি ব্যবহার ও উৎপাদনের অনুমোদন দেয়ার কথা জানান।

তিনি বলেন, “কোভিডের চিকিৎসায় জরুরি ব্যবহারের জন্য অ্যান্টি-ভাইরাল হিসেবে মুখে খাওয়ার ঔষধ মলনুপিরাভিরকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে।”

মোট ১০টি প্রতিষ্ঠান এই ঔষধটি প্রস্তুত ও বাজারজাত করার আবেদন করেছিল। বেক্সিমকো, স্কয়ার ও এসকেএফকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে, বাকী সাতটি প্রতিষ্ঠানও অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানায় ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

এর আগে মলনুপিরাভিরকে রোগীদের জন্য ব্যবহারের অনুমোদন দেয় যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র।

মলনুপিরাভির কী?

মলনুপিরাভির একটি ট্যাবলেট বা বড়ি। করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় এই ঔষধটি দিনে দুইবার ঝুঁকিপূর্ণ রোগীদেরকে দেয়া হয়। মূলত এই ঔষধটি ফ্লু এর চিকিৎসার জন্য তৈরি করা হয়েছিল।

ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল অনুযায়ী, এই ঔষধটি রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি ও মৃত্যুঝুঁকি অর্ধেক কমিয়ে দেয়।

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় এটাই প্রথম ঔষধ যেটি শিরায় প্রয়োগ নয় বরং মুখে সেবন করা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ঔষধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান মার্ক, শার্প এন্ড ডোম (এমএসডি) এবং রিজব্যাক বায়োথেরাপিউটিকস-এর তৈরি করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় এটিই মুখে খাওয়ার প্রথম ঔষধ।

যুক্তরাজ্য এরইমধ্যে ঔষধটির চার লাখ ৮০ হাজার কোর্স কিনতে সম্মত হয়েছে। আশা করা হচ্ছে যে, নভেম্বরেই এর প্রথম চালান আসবে।

যুক্তরাজ্যের জাতীয় গবেষণার আওতায় প্রাথমিকভাবে এই ঔষধটি টিকা নেয়া এবং না নেয়া-দুই ধরণের রোগীদেরকেই দেয়া হবে। তাদের থেকে পাওয়া তথ্যের বিশ্লেষণের পরই এই ঔষধটি সম্পর্কে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

রোগীর মধ্যে কোভিডের উপসর্গ দেখা দেয়ার পাঁচ দিনের মধ্যে ঔষধটি দেয়া গেলে সবচেয়ে ভাল ফল পাওয়া যায়।

Continue Reading

স্বাস্থ্য

সুবিধাবঞ্চিত মানুষের করোনা সচেতনতায় মেডিকেল ও ডেন্টাল শিক্ষার্থীদের ক্যাম্প

Published

on

ছবি : ক্যাম্পে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের একাংশ

নিসা আলী

বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাছে চিকিৎসা সেবা পৌছে দিতে এবং তাদের মাঝে স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেশের সনামধন্য মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে অধ্যয়নরত কক্সবাজার জেলার শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে গত ২২ অক্টোবর, রোজ বৃহস্পতিবার আয়োজিত হলো ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প।

করোনা পরিস্থিতিতে যেখানে তিন বেলা আহার জোটানো মুস্কিল, চিকিৎসা সেবা সেইখানে অপ্রত্যাশিত।কিন্তু চিকিৎসা সেবা পাওয়ার অধিকার, মৌলিক চাহিদা গুলোর মধ্য অন্যতম। এই অসহায় মানুষদের মধ্যে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে তাই মেডিকেল শিক্ষার্থীদের এ আয়োজন।

আয়োজিত ক্যাম্পে ঢাকা মেডিকেল কলেজ, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ,সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ,কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ, বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ এবং ডেন্টাল কলেজ গুলোর মধ্যে ঢাকা ডেন্টাল কলেজ ডেন্টাল,রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ডেন্টাল ইউনিট সহ আরো অনেক স্বনামধন্য মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।

এই ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে মেডিকেলে পড়ুয়া এসব শিক্ষার্থীরা প্রায় ৩০০ জনের ব্লাড গ্রুপিং, ৯০ জনের রেন্ডম ব্লাড স্যুগার, ২০০ জনের মতো ব্লাড প্রেসার এবং প্রায় ৩০০ জন কে ফ্রি মাস্ক বিতরন করে।

তাদের এই আয়োজনে অসহায় মানুষের সুবিধার জন্যে চোখে পড়ার মতো দুইটি বুথ ছিল। যেখানে একটি বুথে ছিল করোনা সচেতনতা বিষয়ক সেমিনার এবং অপর একটি বুথে গ্রামের অসচেতন নারীদের মাঝে নারী স্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতনতা নিয়ে কাউন্সিলিং।

এসময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার আব্দুর রহিম এবং ভেন্যু স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ শফি উল্লাহসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

এদিকে কক্সবাজার জেলা থেকে দেশের বিভিন্ন মেডিকেল এন্ড ডেন্টালে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের এমন মহতি উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে স্থানীয়রা। এছাড়া, অসচেতন গ্রামের মানুষকে সচেতন করে গড়ে তুলার লক্ষ্যে যতবেশি এই ধরনের আয়োজন করা যায় তত ভালো হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ।

Continue Reading

স্বাস্থ্য

আরব আমিরাতে সবার আগে টিকা নিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Published

on

সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী আবদুল রহমান আল ওয়াইস দেশটিতে জরুরি ভিত্তিতে দেওয়া করোনার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন।

আরব নিউজ এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়।এ টিকা তৈরি করেছে চীনা টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান সিনোফার্ম। টিকাটি সংযুক্ত আরব আমিরাতে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা চলছে। সেখানকার হাজারো স্বেচ্ছাসেবীর ওপর পরীক্ষা করার পর টিকার ডোজ তৈরি করা হয়েছে।বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, গত সোমবার দেশটিতে চীনা টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান সিনোফার্মের তৈরি টিকা পরীক্ষার অনুমতি দেওয়া হয়।করোনার টিকা পরীক্ষা শুরু করার ছয় সপ্তাহ পরই তা জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমতি দিয়েছে দেশটি।গত জুলাইয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে কোভিড-১৯ টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা শুরু করে সিনোফার্ম। এখনো টিকাটির পরীক্ষা শেষ হয়নি।

দেশটির ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি ক্রাইসিস অ্যান্ড ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথোরিটি এক টুইটে বলেছে, টিকাটি ভাইরাসের সংস্পর্শে আসার সর্বোচ্চ ঝুঁকিতে থাকা প্রতিরক্ষাকাজে নিয়োজিত প্রথম সারির নায়কদের দেবে তারা। পরীক্ষাধীন থাকা টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমতি দেওয়ার বিষয়টি ২১ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর ওপর পরীক্ষা চালানোসহ কয়েকটি মানদণ্ডের ওপর ভিত্তি করে দেওয়া হয়েছে।দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ডব্লিউএএম সোমবার জানিয়েছে, টিকাটি শুরুতে দেশটির স্বাস্থ্যকর্মীদের দেওয়া হবে। তার আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিজে টিকাটি নেন।আল ওয়াইস বলেছেন, আরব আমিরাত সম্মুখসারির নায়কদের জন্য সব ধরনের নিরাপত্তাব্যবস্থা নেবে।

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে থাকার কারণে যেকোনো বিপদ থেকে তাঁদের রক্ষা করা হবে।সোমবার টেলিভিশনে প্রচারিত এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, টিকাটি সম্পূর্ণ আইন ও নিয়ম মেনে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এটি নিরাপদ ও কার্যকর প্রমাণ হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবীদের ওপর পরীক্ষার এটি অ্যান্টিবডি তৈরি করে শক্তিশালী প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে।আরব আমিরাতে চালানো ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ৩১ হাজার স্বেচ্ছাসেবীকে যুক্ত করা হয়।আরব আমিরাতে বসবাসকারী ১২৫টি দেশের নাগরিকেরাও এতে অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন।দেশটির চিকিৎসক নাওয়াল আল কাব্বি বলেছেন, পরীক্ষার প্রাথমিক ফলাফল উৎসাহব্যঞ্জক। এতে খুব সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়। স্বেচ্ছাসেবকদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হতে দেখা গেছে।আরব আমিরাতের চিকিৎসকেরা বলছেন, টিকা পরীক্ষার সময় বিভিন্ন রোগ ও জটিলতায় ভুগতে থাকা এক হাজার ব্যক্তিকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল।

তাঁদের কোনো মারাত্মক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। এতে কেবল সাধারণ ফ্লু ভাইরাসের মতো গলাব্যথার মৃদু উপসর্গ দেখা দিতে পারে। সিনোফার্ম প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের টিকা পরীক্ষা চালিয়েছিল চীনে। পরের ধাপের পরীক্ষার জন্য আরব আমিরাত, বাহরাইন ও জর্ডানকে বেছে নেয়।

সিনোফার্মের পক্ষ থেকে গত জুলাই মাসে আরব আমিরাতে টিকা পরীক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। পরীক্ষামূলক টিকাটির প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপ সফল হয়েছে বলে দাবি করা হয়। এ সময় ২৮ দিনের ব্যবধানে দুই ডোজ টিকা দেওয়ার পর শতভাগ স্বেচ্ছাসেবীর শরীরে অ্যান্টিবডি পাওয়া যায়।সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোলের তথ্য অনুযায়ী, ইনঅ্যাক্টিভেটেড ভ্যাকসিন হিসেবে যে টিকা তৈরি করা হয়, এতে মৃত ভাইরাস বা ভাইরাস থেকে সংগৃহীত প্রোটিন ব্যবহৃত হয়। টিকা তৈরির এ প্রক্রিয়া ইনফ্লুয়েঞ্জা ও হামের বিরুদ্ধে পরীক্ষিত।

Continue Reading
সংগঠন1 week ago

জিডিএফ বর্ষপূর্তি ও সাইন্টিফিক সেমিনারের পোস্টার উন্মোচন

জাতীয়2 weeks ago

চিকিৎসক বুলবুল হত্যা: পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট

জাতীয়1 month ago

প্রেসক্রিপশন ছাড়া এন্টিবায়োটিক বিক্রি করলে ফার্মেসির লাইসেন্স বাতিল

ক্যারিয়ার1 month ago

জনস্বাস্থ্য ডেন্টিস্ট্রি বিভাগে পদসৃজন -(নিপসম)

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়1 month ago

অ্যান্টিবায়োটিকের মোড়ক হবে লাল, যথেচ্ছ ব্যবহার রোধে হচ্ছে আইন

জাতীয়1 month ago

দাউদকান্দিতে অবৈধ হাসপাতাল-ক্লিনিকের রমরমা বাণিজ্য

জাতীয়2 months ago

৭ ছাত্র নিরুদ্দেশ: চিকিৎসক শাকিরের সহযোগী ভিলার স্বীকারোক্তি

সিলেট বিভাগ2 months ago

চিকিৎসককে ছুরিকাঘাতের হুমকি দিয়ে ডেন্টাল চেম্বারে ছাত্রলীগ নেতার চাঁদাবাজি!

সংগঠন2 months ago

ডা: মোত্তাকিন আহমেদ স্মরণে বিএসপিডি’র দোয়া মাহফিল

সংগঠন2 months ago

চিকিৎসকদের জন্য লিডারশীপ এক্সেলেন্সি শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

কলাম2 months ago

স্বাস্থ্য খাতে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্ব

জাতীয়2 months ago

সংস্থা বলছে জঙ্গি – পরিবারের দাবি ডাঃ শাকির নির্দোষ

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর2 months ago

দেশে রেকর্ড সংখ্যক ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

জাতীয়2 months ago

প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়ন কার্যক্রম কেউ ঠেকাতে পারবে না – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জাতীয়2 months ago

বিএসএমএমইউ সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয়2 months ago

ডেন্টাল সার্জন অবসরে, কর্তৃপক্ষের সম্মতিতে চিকিৎসা দিচ্ছে টেকনিশিয়ান

জাতীয়2 months ago

সিআইডি পরিচয়ে ‘চিকিৎসক’ তুলে নেওয়ার অভিযোগ

জাতীয়2 months ago

ওষুধের দাম বাড়ায় বিপাকে সাধারণ মানুষ

পরামর্শ2 months ago

দাঁতের চিকিৎসার সময় যে তথ্যগুলো গোপন করবেন না!

জাতীয়2 months ago

হাসপাতালের ল্যাবে ইলিশ মাছ, সিলগালা করে দিলেন ম্যাজিস্ট্রেট

Advertisement

সম-সাময়িক

Subscribe for notification