Connect with us

BSMMU

বিএসএমএমইউ’তে ঢাবি শিক্ষার্থীদের হামলা : এ্যাম্বুলেন্সসহ ৮টি গাড়ি ভাঙচুর, আহত ২০

DENTALTIMESBD.com

Published

on

DentalTimes

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) বহির্বিভাগের টিকেট কাটা নিয়ে কথাকাটাটির মতো তুচ্ছ ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরে একদল উশৃঙ্খল শিক্ষার্থীর অতর্কিত হামলায় কর্মকর্তা, আনসার, ড্রাইভার-কর্মচারীসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ জানান, হামলাকারীরা লাঠি, সোটা নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১টি এ্যাম্বুলেন্স, ১টি বাসসহ কমপক্ষে ৮টি গাড়ি ভাঙচুর করেছে। এসময় রোগী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত চিকিৎসক, কর্মকর্তা, নার্স, কর্মচারীসহ সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে করে। হামলাকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ব্লকের প্রধান ফটকের কাচের দরজা সম্পূর্ণরূপে ভেঙে ফেলে। হামলার ঘটনার সিসিটিভির ফুটেজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে সংরক্ষিত রয়েছে। এই ন্যাক্কারজনক হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ইং তারিখে আনুমানিক দুপুর ১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পিয়াস, সাব্বির, নাঈম ইসলাম, সাগর শাহরিয়ার নিয়ম বহির্ভূতভাবে টিকেট চাওয়া নিয়ে পূবালী ব্যাংকের কর্মকর্তা মোঃ খালিদ হোসেনের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এসময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেন ওই চার শিক্ষার্থীকে  বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (হাসপাতাল) মহোদয়ের কক্ষে নিয়ে যান। পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে মাহবুবুল হক বিষয়টির সমাধান করে দেন। কিন্তু পরিচালক (হাসপাতাল) মহোদয়ের কক্ষ থেকে বের হয়ে ওই চার শিক্ষার্থী সি ব্লকের সামনে প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেনকে মারধর করে আহত করে। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তব্যরত আনসার সদস্যসহ অন্যান্যরা এগিয়ে যান এবং ওই চার শিক্ষার্থীকে পুনরায় পরিচালক হাসপাতালের কক্ষে নিয়ে যান।

এ ঘটনার খবর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে জানানোর পর ঢাবির ২ জন সহকারী প্রক্টর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জসিমউদ্দিন হলের ভিপি মোঃ ফরাদ  বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (হাসপাতাল) অফিসে আসেন এবং এই ঘটনার খবর শাহবাগ থানার পুলিশ প্রশাসনকেও অবহিত করা হয়। পরবর্তীতে শাহবাগ থানা পুলিশ প্রশাসনের উপস্থিতিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে মাহবুবুল হক, সম্মানিত প্রক্টর অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোজাফফর আহমেদ, সহকারী প্রক্টর কে এম তারিকুল ইসলামসহ ঢাবি কর্তৃপক্ষ উদ্ভূত পরিস্থিতি ও বিষয়টি সমাধানের লক্ষে আলোচনায় বসেন। কিন্তু আলোচনারত অবস্থায় বিকাল ৩টা ৫০ মিনিটে কবি জসিমউদ্দিন হলসহ ঢাবির ২৫-৩০ জন শিক্ষার্থী সশস্ত্র অবস্থায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ ও ২নং গেট দিয়ে প্রবেশ করে গাড়ি ভাঙচুর করে এবং অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা, আনসার সদস্য, ড্রাইভার ও কর্মচারীসহ কমপক্ষে ২০ জনকে পিটিয়ে আহত করে।

পরবর্তীতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই চার শিক্ষার্থীকে শাহবাগ থানা পুলিশ তাঁদের থানা হেফাজতে নিয়ে যান। ঢাবি শিক্ষার্থীদের হমলায় আহতরা বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহতদের মধ্যে রয়েছেন প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হোসেন, পরিবহন সুপারভাইজার সুরুজ, আনসার সদস্য মোঃ মনজুরুল ইসলাম, মোঃ নাজমুল ইসলাম, মোহাম্মদ আলী, মোঃ জহিরুল ইসলাম, মোঃ ইউসুফ আলী, মোঃ জুবায়ের হোসেন, মোঃ টিপু সুলতান, মোঃ শামীম হোসেন, অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী ইদ্রিস, রুবেল, জামাল, ইসমাইল, আজাদ, জামাল-২, উজ্জ্বল, জনি, আল আমিন, চয়ন বিশ্বাস ও মাসুদ সিকদার।

BSMMU

MD/MS Phase-A আবাসিক প্রোগ্রাম-মার্চ ২০২১ এর ভর্তি নোটিশ

DENTALTIMESBD.com

Published

on

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং আওতাধীন মেডিকেল কলেজ/ডেন্টাল কলেজ/ইনস্টিটিউট এ একাডেমিক সেশন, ১ মার্চ, ২০২১ থেকে অনুষ্ঠিতব্য MD/MS Phase-A এর বিভিন্ন শাখায় আবাসিক প্রোগ্রামে ভর্তিচ্ছুদের নির্ধারিত ফরমের মাধ্যমে আবেদনের জন্য আমন্ত্রণ জানানো যাচ্ছে।

আবেদনকারীদের প্রতি নির্দেশনাঃ
MD/MS Phase-A এর বিভিন্ন শাখায় আবাসিক প্রোগ্রামে ভর্তিচ্ছুরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদনের যোগ্যতা এবং আবেদনের শাখা দেখতে পারবেন।

আবেদন ফি ও ফি প্রদানের পদ্ধতিঃ
৪০০০ টাকা (চার হাজার টাকা, অফেরতযোগ্য) পূবালী ব্যাংকের যে কোনো অনলাইন শাখার মাধ্যমে “SB No. 0947101136920, A/C Examination Management & Miscellaneous Fund BSMMU”, পূবালী ব্যাংক, শাহবাগ শাখা, ঢাকা তে প্রেরণ করতে হবে।

ফি প্রদানের সময়সীমাঃ
২০ অক্টোবর হতে ২২ নভেম্বর ২০২০ পর্যন্ত
আবেদনপত্র জমা দেয়ার সময়সীমাঃ
২১ অক্টোবর হতে ২৩ নভেম্বর ২০২০ (রাত ১১ টা ৫০ পর্যন্ত)

আবেদনপত্র জমা (অনলাইনে)
আবেদন ফি জমা দেয়ার পর আবেদনকারীকে অবশ্যই www.bsmmu.edu.bd ওয়েবসাইটে প্রকাশিত আবেদন ফর্ম উপরোল্লিখিত নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পূরণ করতে হবে।

আবেদনকারীকে নিজের স্ক্যান করা রঙ্গীন ছবি (ছবির সাইজ 500500 px হতে হবে, ৩ মাসের অধিক পুরান ছবি যাতে না হয় এবং ব্যাকগ্রাউন্ড এ একটি কালার থাকা লাগবে যেনো আবেদনকারীর চেহারা স্পষ্ট বুঝা যায়), ব্যাংক রশিদ (ছবির সাইজ 500500 px) এবং নিজের স্বাক্ষর দিতে হবে।

লিখিত ভর্তি পরীক্ষাঃ
তারিখ, সময়, স্থান এবং এডমিট কার্ড প্রিন্ট করার সময় পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

বিঃদ্রঃ আবাসিক প্রোগ্রাম Phase-B এর আবেদন নোটিশ এবং আবেদন যোগ্যতা শীঘ্রই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে।

DentalTimes

Continue Reading

জাতীয়

নকল মাস্ক দেওয়ার মামলা, ৩ দিনের রিমান্ডে শারমিন

Avatar

Published

on

নকল মাস্ক দেওয়ার মামলা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে নকল ‘এন-৯৫’ মাস্ক সরবরাহের অভিযোগে গ্রেপ্তার শারমিন জাহানকে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ শনিবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন (সিএমএম) আদালত এই আদেশ দেন।

আসামি শারমিন জাহানকে আদালতে হাজির করে তিন দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে ডিবি পুলিশ। আদালত উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন। শারমিন জাহানকে গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর শাহবাগ থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর আগে, বৃহস্পতিবার রাতে বিএসএমএমইউয়ের প্রক্টর বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় প্রতারণার মামলা করেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, এই মাস্কের কারণে কোভিড-১৯ সম্মুখযোদ্ধাদের জীবন মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়েছে।

মামলার আসামি শারমিন জাহান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলাদেশ–কুয়েত মৈত্রী হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। এরপর কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদক পদে ছিলেন। আওয়ামী লীগের গত কমিটিতে মহিলা ও শিশুবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য ছিলেন। এর আগের কমিটিতে একই উপকমিটির সহসম্পাদক ছিলেন তিনি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে স্নাতকোত্তর শেষে বিশ্ববিদ্যালয়েরই প্রশাসন-১ শাখায় সহকারী রেজিস্ট্রার হিসেবে কর্মরত তিনি। তাঁর বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলার শ্যামগঞ্জের গোহালকান্দায়। তিনি মাস্ক সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান অপরাজিতা ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী।

মামলায় বিএসএমএমইউয়ের প্রক্টর মো. মোজাফফর আহমেদ বলেছেন, গত ২৭ জুন শারমিন জাহানকে ১১ হাজার মাস্ক সরবরাহের কার্যাদেশ দেয় বিশ্ববিদ্যালয়। কার্যাদেশের বিপরীতে ৩০ জুন প্রথম দফায় ১ হাজার ৩০০টি; ২ জুলাই দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফায় ৪৬০টি ও ১ হাজারটি এবং ১৩ জুলাই চতুর্থ দফায় ৭০০টি মাস্ক সরবরাহ করে। প্রথম ও দ্বিতীয় লটের মাস্কে কোনো সমস্যা ছিল না। তৃতীয় ও চতুর্থ দফায় লট বিতরণ ও ব্যবহারে ত্রুটি পাওয়া যায় এবং মাস্কের গুণগত মান স্পেসিফিকেশন অনুযায়ী পাওয়া যায়নি। কোনো মাস্কের বন্ধনী ফিতা ছিঁড়ে গেছে, কোনো মাস্কের ছাপানো লেখায় ত্রুটিপূর্ণ ইংরেজি লেখা পাওয়া গেছে, কোনো কোনো মাস্কের নিরাপত্তা কোড ও লট নম্বর প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে গিয়ে নকল বলে জানা গেছে। এ কারণে কর্তৃপক্ষ বুঝতে পারে যে মাস্কের গুণগত মান নিম্নমানের ছিল।

মামলায় বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শারমিন জাহানকে ১৮ জুলাই কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছিল। শারমিন ২০ জুলাই দেওয়া জবাবে ‘দুঃখ প্রকাশ’ করেন, যা দোষ স্বীকারের শামিল। মামলায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শারমিনের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার অভিযোগ করেছে।

গ্রেপ্তারের আগে মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে শারমিন জাহান প্রথম আলোকে বলেছিলেন, তিনি নকল মাস্ক সরবরাহ করেননি। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সহকারী পরিচালক পণ্যগুলো যাচাই করে গ্রহণ করেছেন। এত দিন পর এসে তাঁরা বলছেন পণ্যে ত্রুটি ছিল। এটা ঠিক নয়। শারমিনের দাবি, মাস্ক তিনি প্রস্তুত করেন না। অন্য প্রতিষ্ঠান থেকে এনে সরবরাহ করেন। সে ক্ষেত্রে কোনো ত্রুটি যদি থেকেও থাকে, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তা বদলে দেওয়ার কথা বলতে পারত। কিন্তু তা না করেই তারা মামলা করে দিল। তিনি এখানে ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন।

কারণ দর্শানোর নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতে দুঃখ প্রকাশের বিষয়ে শারমিন বলেন, মাস্ক সরবরাহের জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেননি। তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন এমন একটি পরিস্থিতির উদ্ভব হওয়ার জন্য।

Continue Reading

BCPS

৪৮ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম এফসিপিএস পরীক্ষা স্থগিত

Avatar

Published

on

DentalTimes

করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে স্থগিত করা হয়েছে জুলাই ২০২০ সেশনের এফসিপিএস পরীক্ষা- এমনটাই জানিয়েছেন বিসিপিএসের অনারারি সচিব অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম দুপুর আড়াইটার দিকে বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

এছাড়া জুলাই সেশনের সকল পরীক্ষা (এফসিপিএস ১ম পর্ব, এফসিপিএস ২য় পর্ব (শেষ পর্ব), প্রিলিমিনারী এফসিপিএস ২য় পর্ব, এফসিপিএস (সাব-স্পেশালিটি) এবং এমসিপিএস) স্থগিত করা হয়েছে । আজ রোববার (১৪ জুন) দুপুরে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ান্স অ্যান্ড সার্জনসের (বিসিপিএস) কাউন্সিলরদের বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত হয়।

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাউন্সিলের মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে পরীক্ষা এখন হবে না। এটা আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।’

৪৮ বছরের ইতিহাসে এফসিপিএস পরীক্ষায় ছেদ পড়লো এ ব্যাপারে মত জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করলাম। প্রেসিডেন্ট স্যার আজকে একটা ভালো উদাহরণ দিয়েছেন। তাহলো, ফুটবল খেলায় কোনো এক দল ১০টি গোল দিয়েছে, আরেকপক্ষ তিনটি দিয়েছে। এদিকে খেলার আর মাত্র ১০ মিনিট সময় বাকি আছে। পিছিয়ে থাকা দল যদিও জানে তারা সমতায় ফিরতে পারবে না, তাই বলে খেলা বন্ধ করে দেয় না। একইভাবে আমরা শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করেছি।’

পরীক্ষা সংক্রান্ত যেসব নিয়ম আগে ছিল, এগুলো বহাল থাকবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ সেশনের পরীক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা পরীক্ষার্থীরা একই রেজিস্ট্রেশন দিয়ে পরবর্তী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। তাছাড়াও এই সেশনের পরীক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা পরীক্ষার্থীরা, তাঁদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করতে চাইলে কলেজের নিয়মানুযায়ী তা করতে পারবেন। এফসিপিএস (সাব-স্পেশালিটি) পরীক্ষার্থীদের মধ্যে যারা ইতিমধ্যে থিসিস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন, পরবর্তী পরীক্ষার জন্য তার বৈধতা থাকবে।

এ সেশনের পরীক্ষা কবে নেওয়ার চিন্তা করছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘জানুয়ারির আগে পরীক্ষা হচ্ছে না। অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হলেও মিড টার্ম কোনো পরীক্ষা হবে না। এখন আমরা যদি বলি, জানুয়ারিতে পরীক্ষা নেবো; দেখা গেলো, ওই সময়ে পরিস্থিতি এর চেয়েও খারাপ হয়ে গেলো। তখন যদি পরীক্ষা নেওয়া না যায়, তাহলে তো আবার সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলো। আইনগতভাবে আমরা পরীক্ষা বাতিল করতে পারবো না। কারণ আমরা পরীক্ষা ফি নিয়েছি। তাই বাতিল করিনি, স্থগিত করেছি।’

এর আগে সকাল ১০টায় বিসিপিএসের ইসি কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে পরীক্ষা কমিটির সুপারিশ পর্যালোচনা করা হয়। ইসি কমিটির ৭ সদসেদ্যর ঘণ্টাব্যাপী এ পর্যালোচনা শেষে কাউন্সিলরদের বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে পরীক্ষা স্থগিতে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ২০ সদস্যের কাউন্সিলর বডির মধ্যে আজকে উপস্থিত ছিলেন ১৭ জন। অনুপস্থিত তিনজনের মধ্যে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের ইউরোলজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এসএএম গোলাম কিবরিয়া মারা গেছেন।

Continue Reading

জনপ্রিয়