Connect with us

ঢাকা

‘বিডিএস পেশাগত পরীক্ষার ফলাফল দ্রুত প্রকাশ করা হবে’

Published

on

Dental Times

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়া ও লকডাউন এর কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত বিডিএস আগস্ট ২০২০ ও নতুন কারিকুলাম যথাক্রমে মে ও নভেম্বরের ২০২০ এর পেশাগত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় চলতি বছরে। করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় কর্তৃপক্ষ বেশ কয়েকবার সময় পরিবর্তনের পর এ বছরের জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি ব্যাপী পরীক্ষাটি অনুষ্ঠিত হয়।

পেশাগত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের বিষয় ডেন্টাল টাইমস কথা বলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডাঃ শাহরিয়ার নবী’র সাথে। তিনি জানান, “বিডিএস পেশাগত পরীক্ষার ফলাফল তৈরীর প্রক্রিয়া চলছে । পরীক্ষার ফলাফল দ্রুত প্রকাশ করা হবে।’

পেশাগত পরীক্ষার ফলাফল ঈদের আগে দেয়ার কোন সম্ভাবনা আছে কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে অধ্যাপক ডাঃ শাহরিয়ার নবী ডেন্টাল টাইমসকে জানান, – “অল্প সময়ে এমবিবিএস পেশাগত পরীক্ষার ফলাফল দেয়া সম্ভব হয়েছে৷ চেষ্টা করছি দ্রুত প্রকাশ করার। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি তুলনামূলক খারাপ হওয়ায় কাজ কঠিন হয়ে গিয়েছে।”

উল্লেখ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত ৪২টি মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস থার্ড প্রফেশনাল পরীক্ষা চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে শেষ হয়েছিল মার্চের ১০ তারিখে। করোনা পরিস্থিতে কয়েকবার পেছানোর পর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে ফল প্রকাশও সম্ভব হয়েছে।

Advertisement
Click to comment

ঢাকা

ক্যান্সারে আক্রান্ত ইউডিসি’র ‘দিলু ভাই’য়ের চিকিৎসার জন্য সাহায্য প্রয়োজন

Published

on

একেএম হেদায়েতুল ইসলাম

ইউনিভার্সিটি ডেন্টাল কলেজ এর প্রস্থডন্টিক্স ডিপার্টমেন্ট এর ল্যাব এসিস্ট্যান্ট দেলোয়ার হোসেন (দিলু ভাই) ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন। কিছুদিন আগেই ধরা পরে । তখন স্টেজ-১ এ ছিল। কিন্তু বর্তমানে স্টেজ-৩ তে আছে (Follicular NHL) । তার চিকিৎসার জন্য অনেক টাকা নিয়মিত খরচ হচ্ছে। এখন পর্যন্ত তার ২টা কেমোথেরাপি দেওয়া হইছে এবং আরো ৪টা কেমোথেরাপি দেওয়া লাগবে। প্রতিটা থেরাপিতে প্রায় ৬০/৬৫ হাজার টাকার মত দরকার হয়।

তিনি এতদিন পর্যন্ত মুখ ফুটে কারো কাছে সাহায্য চায়নি। তার সহায়সম্বল যা ছিল সব বিক্রি করে এখন নিঃশ্বেস প্রায়। একটা ডিপিএস ছিল তাও ভেঙে ফেলছে টাকার জন্য। এখনো তার অনেক টাকা গ্যাপ আছে বাট সাহায্য করার মত তেমন কোন সাপোর্ট অবশিষ্ট নাই। একটা মধ্যবিত্ত পরিবারের কর্মক্ষম কারো ক্যান্সার হলে তার চিকিৎসা খরচ মেইনটেইন করা কতটা কঠিন তা শুধুমাত্র যারা ভুক্তভোগী তারাই জানে। খুব ই অমায়িক একজন লোক তিনি।

Dental Times

আমরাতো কত টাকাই কতভাবে নস্ট করি। আর সে কিন্তু আমাদের পরিবারেরই একজন (শিক্ষার্থী বা চিকিৎসক না হলেও আমাদের পেশার এর সাথে সম্পর্কিতই)। তাই পরিবারের সদস্য হিসেবে তাকে সাধ্যমত সাহায্য করার জন্য আমাদের সবারই এগিয়ে আসা প্রয়োজন। সাহায্য করার পাশাপাশি তার জন্য খুব বেশি বেশি দোয়া করবেন এটা কাম্য।

আমাদের একটা ব্যাপার একটু চিন্তা করা উচিত। আমাদের কিছু টাকা দিতেই যদি কস্ট অনুভব  করি, তাহলে এত অল্প সময়ে এতগুলো টাকা ম্যানেজ করতে দিলু ভাইয়ের পক্ষে কতটা কঠিন! আর ব্যাপারটা এমনও না যে তাকে প্রতি মাসেই টাকা দিতে হবে।

সাহায্যের এমাউন্ট আমরা ফিক্সড করছিনা। কিন্তু সবাই যার যার সাধ্য অনুযায়ী সর্বোচ্চ সাহায্য করবেন এটাই আশা রাখি। আরেকটা বিষয়,   সবার ফ্যামিলিতেই হয়তো যাকাত আদায় করেন। টাকার এমাউন্টটা আসলেই অনেক বেশিতো,  তাই সম্ভব হলে আপনাদের/তোমাদের ফ্যামিলি মেম্বারের সাথে শেয়ার করলে হয়তো যাকাতের টাকা থেকে বা এমনিতেও সাহায্য হিসেবে আরো কিছু টাকা ম্যানেজ করা যেতে পারে।

যেহেতু এই মাস প্রায় শেষের দিকে। তাই হয়তো অনেকের ই দিতে প্রব্লেম হতে পারে। তাই আমরা ইনশাআল্লাহ আগামি মাসের ৭ তারিখ পর্যন্ত কালেকশন করবো। এই মাসে প্রব্লেম হলে দরকার হলে আগামী মাসে দিতে পারেন বাট সাধ্য অনুযায়ী যে যা দিবেন তাতেই ভাইয়ের হেল্প হবে ইনশাআল্লাহ ।

সাহায্য পাঠাতে নিচের দেওয়া Mobile Banking এবং ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে পাঠাতে পারেন:

বিকাশ : 01727707267
নগদ : 01727707267
রকেট : 017277072679

ব্যাংক

Islami bank Limited.
A/C no : 20503326700043317
Name : AKM Hedayetul Islam
Branch : Moghbazar, Dhaka.

টাকা পাঠিয়ে কাইন্ডলি কনফার্ম করতে ম্যাসেঞ্জারে নক করতে পারেন বা কল করতে পারেন এবং যেকোন প্রয়োজনেঃ

Akm Hedayetul Islam (UDC-21)
Cell : 01626668702
Anik Khandokar Joy (UDC – 21)
Cell : 01305-604395

Continue Reading

ঢাকা

আগামীকাল পিডিসি এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ নির্বাচন

Published

on

Dental Times

আগামীকাল ৯ই এপ্রিল বহুল প্রতীক্ষিত পাইওনিয়ার ডেন্টাল কলেজ এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশন এর সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, অর্থ সম্পাদক, সহ-দপ্তর সম্পাদক, গবেষনা ও মান উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক, সহ-উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এই ৭ টি গুরুত্বপূর্ণ পদে নির্বাচন হতে যাচ্ছে।

আগামীকাল সভাপতি পদে ডাঃ গাজী জাসেদ আহমেদ (পিডিসি-২) এবং ডাঃ শফিউর রহমান পরাগ (পিডিসি-৫) নির্বাচন করবেন। সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে ডাঃ এটিএম নজরুল ইসলাম (পিডিসি-২) এবং ডাঃ কামরুল হাসান ডলার (পিডিসি-৫) নির্বাচন করবেন।

সাধারণ সম্পাদক পদে ডাঃ মামুনুর রশিদ (পিডিসি-৩) এবং ডাঃ ফিদা হক পিলন (পিডিসি-৫) নির্বাচন করবেন। কোষাধ্যক্ষ পদে ডাঃ সিফাত উদ্দিন খান(পিডিসি-১০) এবং ডাঃ কাজী আরিফুল ইসলাম(পিডিসি-৭) নির্বাচন করবেন। সহ-দপ্তর সম্পাদক পদে ডাঃ আফসানা হক (পিডিসি-১৬),ডাঃ সালমান সামাদ (পিডিসি-১৮) এবং ডাঃ আরাফাত মোর্শেদ সিফাত (পিডিসি-২০) নির্বাচন করবেন এবং যেকোন দুইজন নির্বাচিত হবেন।

গবেষনা ও মান উন্নয়ন সম্পাদক পদে ডাঃ সজিব কুমার বাড়ৈ(পিডিসি-১৫) এবং ডাঃ তাহসিন আহমেদ(পিডিসি-১৬) নির্বাচন করবেন। সহ উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষন বিষয়ক সম্পাদক পদে ডাঃ রিজওয়ান হিমেল(পিডিসি-১৫), ডাঃ তাহিয়া মনসুর (পিডিসি-১৬) এবং ডাঃ রওশান নাহির (পিডিসি-১৮) নির্বাচন করবেন এবং যেকোন দুইজন নির্বাচিত হবেন।

আগামীকাল শুক্রবার সকাল ৯ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন নির্ধারিত ওয়েবসাইটে অনলাইন ভোটিং পদ্ধতিতে ভোট গ্রহন শুরু হবে।

উল্লেখ্য, এর আগে গঠনতন্ত্র মোতাবেক গত ২০ মার্চ বাকি পদে অন্য প্রার্থীদের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী ঘোষনা করে নির্বাচন কমিশন।

Continue Reading

ডেন্টিস্ট ডে

এসএসএমসি ডেন্টাল ইউনিটে ‘ডেন্টিস্ট ডে’ পালন

Published

on

157258035_262179932069334_33759881694596948_n
157296993_2739381286321969_238555825766070527_n
158068058_231414005385352_3171945537091563886_n
158334074_261490202132016_4822034911464693366_n
157463731_358350471970239_2097582552289190708_n
157258035_262179932069334_33759881694596948_n 157296993_2739381286321969_238555825766070527_n 158068058_231414005385352_3171945537091563886_n 158334074_261490202132016_4822034911464693366_n 157463731_358350471970239_2097582552289190708_n

প্রতি বছরের ন্যায় এবারো ৬ই মার্চ ” World Dentist Day ” উপলক্ষে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিট এক বর্নাঢ্য র‍্যালি ও র‍্যালি পরবর্তী কেক কাটা ও আলোচনা সভার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে ছিলেন স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে অধ্যক্ষ ডাঃ নুরুল হুদা লেলিন ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিটফোর্ড হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ ব্রিগ্রেডিয়ার জেনঃ রশিদ-উন-নবী , ওরাল হেলথ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডাঃ আশিষ কুমার বণিক এবং কলেজটির উপাধ্যক্ষ ডাঃ জি এম আকাইদ এসএসএমসি। অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন কলেজটির ডেন্টাল ইউনিট প্রধান ডাঃ আমিনুল ইসলাম পান্না।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ডাঃ মজনু মিয়া ও সাধারন সম্পাদক ডাঃ মাইদুল ইসলাম নাঈম। উল্লেখ্য যে প্রতিবছরই বাংলাদেশের মধ্যে সবচেয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে ডেন্টিস্ট ডে পালন করা হয় স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে, এবার ইউনিটের দশম বর্ষে এসেও তার ব্যাতিক্রম হয় নি।

এবারের আলোচনার বিষয় ছিল “Scopes of Dentistry vs Tin Anniversary of SSMC Dental Unit” আলোচনা সভার বিষয় নিয়ে সবার মাঝে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক ডাঃ আশিষ কুমার বণিক এবং সর্বশেষে অনুষ্ঠানের সভাপতি ডাঃ আমিনুল ইসলাম পান্না’র বক্তব্য দিয়ে আয়োজন সমাপ্ত হয়।

এরপর অনুষ্ঠিত হয় অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ র‍্যাফেল ড্র। র‍্যাফেল ড্রে এর বিজয়ীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন আমাদের আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ। শিক্ষকমন্ডলী,ইন্টার্ন ডাক্তার, বিডিএস এবং এমবিবিএস এর নানান বর্ষের শিক্ষার্থীদের প্রাণবন্ত অংশগ্রহণ অনুষ্ঠানটি সফল ও সার্থক হয়।

Continue Reading

Campus News

মার্কস মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে ডেন্টিস্ট ডে উদযাপন

Published

on

Dental Times

আজ ৬ মার্চ, মার্কস মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটের আয়োজনে “ডেন্টিস্ট ডে“ উপলক্ষে মিরপুর ১৪ থেকে র‍্যালি শুরু হয়।


“বিডিএস না তো দাঁতের ডাক্তার না।” প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে র‍্যালির আয়োজন হয়া। কলেজের ডেন্টাল ইউনিট প্রধান ডাঃ খন্দকার আলতাফ হোসেন সহ বিডিএস শিক্ষার্থীরা, ইন্টার্ণ চিকিৎসকবৃন্দ এবং বিভিন্ন বিভাগীয় অধ্যাপক ও শিক্ষকরার এতে অংশগ্রহণ করেন। সহযোগিতায় ছিল ”পেপসোডেন্ট”

Continue Reading

জাতীয়

উত্তরাধিকার বলে মামার পর ‘ভাগ্নে’ও এখন চিকিৎসক !

Published

on

Dental Times

পাস করে নয়, আবার ট্রেনিং নিয়েও নয়। চট্টগ্রাম নগরীজুড়ে অন্তত শতাধিক ‘দাঁতের ডাক্তার’ আছেন, যারা ‘ডাক্তার’ সেজে বসেছেন উত্তরাধিকার সূত্রে কিংবা ‘দেখে দেখে’। মুদি দোকানের কর্মচারী কিংবা ক্লিনিকের পিয়ন যেমন দেখে দেখে ‘ডাক্তার’ বনে গেছেন, তেমনি ‘ডাক্তার’ দাদার চেয়ারে এখন নাতনিই ডাক্তার সেজে বসছেন, বাবার পর ছেলে নিয়েছেন ‘ডাক্তারির’ গুরুদায়িত্ব। পারিবারিক এই অদ্ভূত চিকিৎসা-ব্যবসায় মামার চেম্বারে ভাগ্নে, চাচার ক্লিনিকে ভাতিজাই রীতিমতো ডাক্তার বনে ‘দাঁতের চিকিৎসা’ দিয়ে চলেছেন।

এদের বেশিরভাগই পারিবারিক সম্পর্কের সূত্র ধরে এখন ‘দন্ত চিকিৎসক’— সাধারণভাবে ‘ডেন্টিস্ট’ হিসেবেই পরিচিতি তাদের। একই পরিবার থেকে উত্তরাধিকারসূত্রে আসা এসব ‘ডেন্টিস্ট’ চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন স্থানে করে যাচ্ছেন দন্তচিকিৎসার রমরমা ব্যবসা। চট্টগ্রাম নগরীর লালদিঘি, পতেঙ্গা, ইপিজেড, আগ্রাবাদ, চকবাজার, মুরাদপুর, জামালখানসহ নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে এরকম বহু কথিত ডেন্টিস্টের খোঁজ মিলেছে— চিকিৎসার নামে যারা দাঁতের রোগীদের পকেট কাটছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এদের বেশিরভাগেরই শিক্ষাগত যোগ্যতা বড়জোর এসএসসি। কয়েকজন আছেন এইচএসসি পাশ। অনেকে আবার স্কুলের গণ্ডিও পেরোতে পারেননি। কিন্তু তারাই ‘দাঁতের ডাক্তার’ সেজে নগরীতে সাধারণ মানুষকে চিকিৎসার নামে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

এদের অপচিকিৎসার শিকার হয়ে দাঁতের চিকিৎসা করাতে এসে সহজ-সরল অনেক মানুষ ট্রান্সমিশন ডিজিসের শিকার হয়ে আক্রান্ত হচ্ছেন হেপাটাইসিস বি ও সি-তে।

দাদার চেম্বারে নাতনিই ‘ডেন্টিস্ট’

নগরীর লালদিঘি জেবি টাওয়ারের সরু গলির মধ্যে দোকান সাজিয়ে বসেছে ‘সুমন ডেন্টাল ক্লিনিক’। ছোট দুটি ঘরের একটিতে রোগী বসার জায়গা। অন্যটিতে রোগী দেখেন সুপ্রিয়া দেবী। তিনি সুমন ডেন্টাল ক্লিনিক মালিক সুমনের নাতনি। এইচএসসি পাস করার পর ফিরিঙ্গিবাজারের ইনস্টিটিউট অফ হেলথ টেকনোলজির অধীনে ৪ বছরের ডিপ্লোমা কোর্স শেষে তিনি এখন দাঁতের চিকিৎসা দিচ্ছেন। সুপ্রিয়া দেবীর সহকারী টিনা চৌধুরী। নবম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা তার। দাঁত বাঁধানো, ক্যাপ, ব্রিজ, ক্যাপল, স্ক্যানিং, ফিলিংসহ আকাবাঁকা দাঁতের চিকিৎসা করা হয় সুমন ডেন্টাল ক্লিনিকে— জানান সুপ্রিয়া দেবী।

সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দেড়টায় ওই ‘ডেন্টাল ক্লিনিকে’ গিয়ে দেখা গেল, আজাদ নামে একজন এসেছেন দাঁতের রুট ক্যানেল করাতে। সুপ্রিয়া দেবী জানান, রুট ক্যানেলে খরচ পড়ে প্রথমে ৩ হাজার টাকা। এটি করতে রোগীকে ৪ থেকে ৫ বার আসতে হয়। প্রথমে দাঁত ওপেন বা খোলা, তিনদিন পর ড্রেসিং, দ্বিতীয় বার এক্সরে করা হয়। এরপর পর্যায়ক্রমে রোগীদের ড্রেসিং, ক্যালসিয়াম ড্রেসিং, অ্যান্টিবায়েটিক ড্রেসিং দেওয়া হয়। তারপর রোগীর দাঁতে পরানো হয় ক্যাপ।

মুদি দোকানের চাকরি ছেড়ে ‘ডেন্টাল ক্লিনিক’

লালদিঘিতেই শুধু নয়, নগরীর অন্য জায়গাতেও আছে এমন দন্তচিকিৎসকের উপদ্রব। নগরীর আগ্রাবাদের চৌমুহনী ‘শেফা ডেন্টাল কেয়ারে’ দাঁতের চিকিৎসা দেন কামাল হোসেন। শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণী। তিনি আগে কর্ণফুলী মার্কেটে মুদি দোকানে সাড়ে চার হাজার টাকার বেতনে চাকরি করতেন তিনি। ওই মুদি দোকানের মালিকের মেয়ে জামাইয়ের ডেন্টাল ক্লিনিক ছিল লালদিঘিতে। ১৫-১৬ বছর আগে পরিচয়ের সেই সূত্র ধরে ওই ক্লিনিকে তার আসা-যাওয়া। সেখানে কিছুদিন হাতেকলমে শিখে তিনি চৌমুহনীতে ‘শেফা ডেন্টাল কেয়ার’ নামের ক্লিনিক খুলে বসেন। এখন তিনি দাঁত তোলা, বাধাই ও স্কেলিং ও ফিলিংয়ের কাজ করে থাকেন। তার ভিজিট প্রথমবার ৩০০ টাকা এবং পরে আসলে ২০০ টাকা।

নগরীর আসকারাবাদ পার হয়ে ঈদগাঁও কাঁচা রাস্তার মোড়ে ১০ বছর ধরে দাঁতের ডাক্তারি করছেন সুজা ইসলাম। তিনিও হাইস্কুলের গণ্ডি পেরোতে পারেননি। ঢাকায় এক ডেন্টাল কেয়ারে একসময় চা-পানি আনার কাজ করতেন। সেখানে থাকতে থাকতেই তার দাঁতের ডাক্তার হওয়া— জানান সুজা ইসলাম। ছোট্ট একটা ঘরে বসে রোগী দেখেন তিনি। রোগীদের দাঁত তোলা ও বাঁধাইয়ের কাজ করেন। পাশেই একটি মুদি দোকান। সেটি তার ছোট ছেলে রায়হানের।

মামার পর ভাগ্নেও এখন ‘ডাক্তার’

লালদিঘি পাড়ের সুমন ডেন্টাল ক্লিনিকের পাশেই প্রাইম ডেন্টাল ক্লিনিক। এখানে ৭ থেকে ৮ বছর ধরে রোগী দেখেন রমেন বড়ুয়া। তিনি টেকনিশিয়ান। আগে এখানে ‘চিকিৎসা’ দিতেন দিলীপ চৌধুরী। দিলীপ সম্পর্কে রমেনের মামা। মামার পর এখন উত্তরাধিকারসূত্রে ভাগ্নে অবতীর্ণ হয়েছেন ডাক্তারের ভূমিকায়। রমেন বড়ুয়ার শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি পাস। তবে রমেন দাবি করেছেন, দাঁত বাঁধাই, রুট ক্যানেল, স্কিলিং, ফিলিংসহ দাঁতের যাবতীয় চিকিৎসার কাজই তিনি জানেন। তবে প্রাইম ডেন্টাল ক্লিনিকে দাঁতের চিকিৎসায় ব্যবহৃত প্রয়োজনীয় কোনো যন্ত্রপাতিই দেখা যায়নি।

অ্যানেসথেসিয়া দিয়ে ‘ডেন্টিস্ট’ দিলীপের আধঘন্টার অপেক্ষা

লালদিঘির এই একই মার্কেটে পাওয়া গেল দন্তচিকিৎসার আরও একটি দোকান— দন্তসেবা প্লাস ক্লিনিক। ঢাকা থেকে ডিপ্লোমা করেছেন দাবি করে এর মালিক দিলীপ বড়ুয়া জানান, এখানে বয়স্ক ব্যক্তিদের দাঁত তুলে দাত বাঁধানোর কাজ করা হয়। চিকিৎসা পদ্ধতি বলতে গিয়ে তিনি জানান, প্রথমে বৃদ্ধ রোগী আসলে তার রোগ সম্পর্কে জানেন। তারপর নিজেই অ্যানেসথেসিয়া (সার্জারির সময় অজ্ঞান করা) দিয়ে রোগীকে অজ্ঞান করেন। আধঘন্টা অপেক্ষা করার পর রোগীর শরীর অবশ হয়ে গেলে তিনি তখন বৃদ্ধ রোগীর দাঁত তুলে ফেলেন। তবে যেসব বয়স্ক ব্যক্তি মদ্যপান করেন, আনেসথেসিয়া দেওয়ার পরও তারা অজ্ঞান হন না বলে জানান ‘ডেন্টিস্ট’ দিলীপ। এমন রোগীদের তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। তবে অন্য রোগীদের জ্ঞান ফেরে ঘন্টাখানেক পর— এমন তথ্য জানিয়ে দিলীপ জানান, রোগীর জ্ঞান ফেরার পর রোগীর হাতে প্রেসক্রিপশন ধরিয়ে দেন তিনি। ৭ থেকে ১০ দিনের অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ লিখে দেন প্রেসক্রিপশনে। দুই মাস পর আবার রোগীকে আসতে বলেন। পরে রোগী আসলে তারপর রোগীর দাঁত বানিয়ে লাগিয়ে দেন মাড়িতে। পুরো এই চিকিৎসা প্রক্রিয়া চালিয়ে নিতে রোগীর কাছ থেকে বড় একটা অংকের অর্থ নেন বলে জানান দিলীপ বড়ুয়া। সাধারণত ১৫ থেকে ১৭ হাজারের মধ্যে দাঁতের এই চিকিৎসা হয়ে থাকে বলে জানান তিনি।

লালদিঘিতেই কেবল জনাত্রিশেক ‘দন্ত চিকিৎসক’

জানা গেছে, লালদিঘির পাড়ে ২৮ থেকে ৩০ জন টেকনিশিয়ান রয়েছেন যারা নিয়মিত দাঁতের রোগী দেখে থাকেন। তারা যে ছোট ঘরটাতে রোগী দেখেন তাকে ‘ক্লিনিক’ বলে চালালেও দাঁতের চিকিৎসায় যেসব যন্ত্রপাতি দরকার তার ন্যূনতম কিছুই নেই।

সরেজমিন ঘুরে এসব চেম্বারে আসা রোগীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অধিকাংশ টেকনিশিয়ান নিজেদের ‘ডেন্টিস্ট’ পরিচয় দিলেও কাজের কাজ তারা কিছুই বোঝেন না। রোগীকে রুট ক্যানেল না করিয়ে দাঁতের ক্যাপও লাগিয়ে দেন বলে অভিযোগ রোগীদের।

‘চীনা ডাক্তারের পুরাতন লোক’

লালদিঘির পশ্চিম পাড়ের স্মৃতি ডেন্টাল কেয়ারে রোগী দেখেন নুর হোসেন। তার ভিজিটিং কার্ডে লেখা তিনি সিভিল সার্জন কর্তৃক প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত। কার্ডে আরও লেখা নূর হোসেন মো. মানিক ‘চীনা ডাক্তারের পুরাতন লোক’।

আমানত ডেন্টাল কেয়ারে রোগী দেখেন মো. ইমরান। তার নেমপ্লেটে লেখা আছে ‘চাইনিজ ডাক্তার টেকনিশিয়ান’। এর কারণ ব্যাখা করতে গিয়ে ইমরান জানান, তার বাবা মোহাম্মদ ইউনুছ লালদিঘি মোড়ে চাইনিজ ডেন্টাল ক্লিনিকের টেকনিশিয়ান ছিলেন। তার বাবা মারা গেছেন ১০ থেকে ১২ বছর হবে। এসএসসিতে ফেল করার পর তিনি বাবার চেম্বারে বসতে শুরু করেন। দাঁত বাঁধাইয়ের কাজ করেন তিনি। যেসব রোগীর দাঁত পড়ে যায়, তাদেরকে তিনি ফলস (নকল) দাঁত লাগিয়ে দেন। প্রথমে দাঁতের আকৃতি নিয়ে ডাইস বানিয়ে রাসায়নিক পাউডার মিশিয়ে ফলস দাঁতগুলো গরম পানিতে সেদ্ধ করেন। এরপর দাঁত লাগিয়ে দেন রোগীকে।

‘এমবিভিডিএডিডি’ ডিগ্রি মানে ‘মেম্বার অব ভিলেজ ডক্টর’

লালদিঘির পশ্চিম পাড়ে নবগ্রহ বাড়ি মন্দিরের পাশে পূবালী ডেন্টাল ক্লিনিকে রোগী দেখেন জিকে বড়ুয়া। তার ভিজিটিং কার্ডে লেখা আছে ‘এমবিভিডিএডিডি’। জিকে বড়ুয়ার কাছ থেকে এর পূর্ণ রূপ হিসেবে জানা গেছে— ‘মেম্বার অব ভিলেজ ডক্টর’।

এই দোকানের ঠিক পাশেই পূরবী ডেন্টাল কেয়ারে রোগী দেখেন ডেন্টিস্ট প্রকৃত রঞ্জন বড়ুয়া। তিনি বলেন, এই চেম্বারটি আগে ছিল তার জেঠা বা বাবার বড় ভাইয়ের। জেঠার সহকারী হিসেবে তিনি কাজ করতে গিয়ে দাঁতের চিকিৎসা শিখে ফেলেছেন। তার ফি ৩০০ টাকা। তিনি দাঁত বাঁধাই, স্কেলিং ও ফিলিংয়ের কাজ করেন। শিক্ষাগত যোগ্যতা তার এসএসসি।

দূরত্ব ১০০ গজ, তবু নেই অ্যাকশন

সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে লালদিঘির দূরত্ব প্রায় ১০০ গজ। তবু কেন কথিত ডেন্টিস্টদের বিরুদ্ধে বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হয় না— সে বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি জানান, ‘এর আগে কথিত ডেন্টিষ্টদের বিরুদ্ধে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে অ্যাকশনে যাওয়া হয়েছিল। মোটা অংকের টাকা জরিমানাও করা হয়েছিল। কিন্তু করোনার সময়ে বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে বিষয়টি নিয়ে কিছু করা হয়নি।’ তবে এদের বিরুদ্ধে আবারও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি।

ট্রান্সমিশন ডিজিসের শিকার হচ্ছে অনেকেই

চট্টগ্রাম ইন্টারন্যাশনাল ডেন্টাল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র সহকারী পরিচালক ডা. সরওয়ার কামাল মুঠোফোনে চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘ডাক্তার বলে দাবি করলেও এসব কথিত দাঁতের ডাক্তার যথাযথ চিকিৎসা জানে না। যেমন একজন রোগীর দাঁতে রুট ক্যানেল করা যাবে না। কিন্তু তারা সেটাই করে। অনেক ক্ষেত্রে রুট ক্যানেল না করেও প্রাথমিক পর্যায়ে ফিলিং করে দিলে হয়। কিন্তু তারা রুট ক্যানেল করায় কিছুদিন পর রোগীর ক্ষত স্থানে ইনফেকশন তৈরি হয়। পরবর্তীতে তা ছড়িয়ে পড়ে রোগীর মাড়িকে ক্ষতিগ্রস্থ করে।

তিনি বলেন, ‘লালদিঘী, পতেঙ্গা, ইপিজেড, আগ্রাবাদ, চকবাজার, মুরাদপুরসহ নগরীর যেখানে-সেখানে গড়ে উঠা এসব কথিত দাঁতের ডাক্তারের চেম্বারে এমনকি স্টেরিলাইজেশন কিংবা অটোক্ল্যাপ মেশিনও নেই। ফলে রোগীরা দাঁতের চিকিৎসা করাতে এসে ট্রান্সমিশন ডিজিসের শিকার হয়ে হেপাটাইসিস বি ও সি-তে আক্রান্ত হন।’

বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিলে (বিএমডিসি) নিবন্ধিত চট্টগ্রামের চিকিৎসক ডা. খোরশেদুল ইসলাম চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘যারা বিএমডিসি কর্তক নিবন্ধিত চিকিৎসক, তারাই ডেন্টিস্ট। অলিগলির এসব কথিত ডেন্টিস্টের কোনো লাইসেন্সও নেই। কথিত এই ডাক্তারদের কাছে গিয়ে রুট ক্যানেলের পর ইনফেকশন হয়, মাড়ি ফুলে যায়। অনেক সময় ক্ষত স্থান থেকে রোগীর দাঁতে ক্যান্সারেরও সৃষ্টি হয়।’

ডেন্টিস্ট্রি পড়ানো হয় শুধু ৩৫ টি ডেন্টাল কলেজ/মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে চারটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় – ঢাকা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এর চিকিৎসা অনুষদে ডেন্টিস্ট্রি অধিভুক্ত আছে। যার অধীনে বাংলাদেশের ৯টি সরকারি ও ২৬টি বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ/ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে ব্যাচেলর অব ডেন্টাল সার্জারী (বিডিএস) পড়ানো হয়। বিডিএস ডিগ্রী অর্জনের পর প্র্যাকটিস করার জন্য বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল থেকে সনদ নিতে হয়। এর জন্য সফলভাবে ইন্টার্নশিপ সম্পন্ন করতে হয়।

চট্টগ্রাম প্রতিদিন থেকে পরিমার্জিত

Continue Reading
Dental Times
জাতীয়8 hours ago

দেশে ডেন্টাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা সময়ের দাবি – অধ্যাপক ডা. বুলবুল

Dental Times
জাতীয়1 week ago

একদিনে ঢাকায় আরও ৭৯ ডেঙ্গু রোগী

Dental Times
জাতীয়1 week ago

করোনায় ডেঙ্গুর প্রকোপ, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিন শতাধিক

Dental Times
জাতীয়2 weeks ago

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ চাইল বাংলাদেশ জাসদ

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

দেশে করোনা শনাক্ত ও মৃত্যুর নতুন রেকর্ড

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

‘জীবনে অনেকবার ঈদ আসবে, যদি বেঁচে থাকি’

Dental Times
জাতীয়2 weeks ago

‘মানুষ করোনাকে স্বাভাবিক জ্বর-সর্দি ভাবছে’

Dental Times
স্বাস্থ্য প্রশাসন2 weeks ago

কাল সিনোফার্ম, পরশু মডার্নার টিকা দেওয়া শুরু

Dental Times
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর2 weeks ago

১৪ দিনের মধ্যে করোনা নিয়ন্ত্রণে না এলে শয্যার সংকট হতে পারে: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের করোনা টেস্ট ও নিবন্ধন বুথের উদ্বোধন

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

কোয়ারেন্টিন অব্যবস্থাপনায় মা ও বাবাকে হারিয়ে ক্ষুদ্ধ সরকারি চিকিৎসক

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

অক্সিজেন সিলিন্ডার না আনতে পারায় বাবার মৃত্যু : পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

ব্যাংকে সেবা নিয়ে ফেরার সময় জানালেন তিনি ‘করোনা পজিটিভ’

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

চট্টগ্রামে রেকর্ড ৭৮৩ জন শনাক্ত, মৃত্যু ১০

Dental Times
BSMMU2 weeks ago

করোনার ভ্যাকসিন ট্রায়ালের জন্য প্রস্তুত বিএসএমএমইউ – ভিসি

Dental Times
করোনা পরিস্থিতি2 weeks ago

আবারও করোনা আক্রান্ত শনাক্তে রেকর্ড : ১৯৯ জনের মৃত্যু

Dental Times
অর্জন2 weeks ago

কান দর্শকদের ‘স্ট্যান্ডিং ওভেশন’ : দর্শকের করতালিতে কাঁদলেন বাঁধন

Dental Times
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর2 weeks ago

কর্মীদের দাপ্তরিক পরিচয়পত্র ব্যবহারের নির্দেশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের

Dental Times
BSMMU3 weeks ago

বিএসএমএমইউর উপ-উপাচার্য নিয়োগ

Dental Times
BSMMU3 weeks ago

‘ডেন্টাল ও প্যারাক্লিনিক্যাল’ বিভাগ খোলা হলো বিএসএমএমইউ তে

Advertisement

সম-সাময়িক

Enable Notifications From DentalTimesBD    OK No thanks