Connect with us

জাতীয়

ভুয়া ডেন্টিস্ট : জামাই প্রেসক্রিপশন লেখে, শ্বশুর করে স্বাক্ষর

নিজস্ব প্রতিনিধি

Published

on

ভুয়া ডেন্টিস্ট

শ্বশুর নূর হোসেন তৃতীয় শ্রেণি পাস, আর জামাতা জাহিদুল ইসলাম পড়েছেন দশম শ্রেণি পর্যন্ত। কিন্তু তাতে কী! যেন দেখার কেউ নেই। তৃতীয় ও দশম শ্রেণি পড়া শ্বশুর-জামাই মিলে রাজধানীর খিলগাঁও তিলপাপাড়া এলাকায় গড়ে তুলেছেন ‘পঞ্চগড় ডেন্টাল কেয়ার’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান। যেখানে জামাই ও শ্বশুর বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পরিচয়ে দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ রোগীদের দাঁতের চিকিৎসা দিয়ে আসছিলেন।

শেষ রক্ষা হয়নি, পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) বিশেষ অভিযানে ধরা পড়েছে তাদের এ অভিনব প্রতারণা।

পঞ্চগড় ডেন্টাল কেয়ার’ পরিচালনার আড়ালে অন্য চিকিৎসকের রেজিস্ট্রেশন নম্বর ব্যবহার করা প্রেসক্রিপশন প্যাডে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে রোগী দেখে আসছিলেন তারা।

ভুক্তভোগী রোগীদের করা অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর খিলগাঁওয়ের তিলপাড়ার ওই ডেন্টাল কেয়ারে অভিযান পরিচালনা করে র‍্যাব-৩।

অভিযান শেষে শ্বশুর নূর হোসেনকে দুই বছরের কারাদণ্ড এবং জামাতা জাহিদুল ইসলামকে এক বছরের কারাদণ্ড দেন র‍্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত। সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন র‍্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু।

অভিযান শেষে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু ডেন্টাল টাইমসকে বলেন, অভিযানে দেখা যায় অন্য ডাক্তারের রেজিস্ট্রেশন নম্বর ব্যবহার করে ডাক্তার অপারেশনসহ দাঁতের ট্রিটমেন্ট দিচ্ছেন নূর হোসেন ও জাহিদুল ইসলাম।

DentalTimes

তিনি বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে ভুয়া চিকিৎসক নূর হোসেন ওষুধের নামও ঠিকমতো উচ্চারণ করতে পারছিলেন না। তখন সন্দেহবশত জানতে চাইলে মো. নূর হোসেন ভ্রাম্যমাণ আদালতকে জানান, তিনি তৃতীয় শ্রেণি পাস। সম্পর্কে তিনি অপর ভুয়া চিকিৎসক জাহিদুল ইসলামের শ্বশুর। জামাতা জাহিদুল আগে পাথর কোম্পানিতে চাকরি করতো, সেটা ছেড়ে শ্বশুরের সঙ্গে ডেন্টাল ক্লিনিকে ভুয়া চিকিৎসা দেয়া শুরু করেন।

জিহান কবির নামের এক চিকিৎসকের প্যাডে তারা স্বাক্ষর করে চিকিৎসাপত্র দিয়ে আসছিলেন। জামাই জাহিদুল ওষুধের নাম লিখতেন আর শ্বশুর নূর হোসেন শুধু করতেন স্বাক্ষর। দীর্ঘদিন ধরে তারা এই জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া চিকিৎসা দিয়ে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন।

অভিযানকালে বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তারা জানান, দালালদের মাধ্যমে তারা জেনেছেন, ওই ডেন্টাল কেয়ারে অভিজ্ঞ চিকিৎসক বসেন। অনেকে চিকিৎসাপত্রও নিয়েছেন। কিন্তু তারা এটা ঘুণাক্ষরেও বুঝতে পারেননি মাত্র তৃতীয় ও দশম শ্রেণিতে পড়া দুজন ভুয়া চিকিৎসক হিসেবে এতদিন চিকিৎসা দিয়ে আসছিলেন!

ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু বলেন, নূর হোসেন দীর্ঘদিন ধরে এ প্রতারণার সঙ্গে জড়িত। তিনি আগে চিকিৎসকদের অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে কাজ করতেন। মাঝে মাঝে তিনি চিকিৎসকের অনুপস্থিতিতে চিকিৎসাপত্রও দিতেন! বছরখানেক আগে তিনি নিজেই বেশি লাভের আশায় এই ‘পঞ্চগড় ডেন্টাল কেয়ার’ নামক প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলেন। জামাই-শ্বশুর মিলে চিকিৎসা দিয়ে আসছিলেন।

শ্বশুর নূর হোসেনকে দুই বছরের কারাদণ্ড এবং জামাতা জাহিদুল ইসলামকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পঞ্চগড় ডেন্টাল কেয়ার নামক প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে দেয়া হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতি

আজও ২ হাজারের বেশি শনাক্ত

Avatar

Published

on

DentalTimes

দেশে টানা পঞ্চম দিনের মতো দুই হাজারের বেশি মানুষের শরীরে কোভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) শনাক্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২ হাজার ২৭৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তবে এই সময়ে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ১৭ জন।

আজ শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় (আজ সকাল আটটা পর্যন্ত) করোনা পরীক্ষা হয়েছে ১৫ হাজার ৬০৭টি। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ২৭৫ জনের। দেশে এখন পর্যন্ত মোট ৪ লাখ ৪৩ হাজার ৪৩৪ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৬ হাজার ৩২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৫৮ হাজার ৪৩১ জন।

গতকাল বৃহস্পতিবার ২ হাজার ৩৬৪ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছিল।

এর আগে গত বুধবার দেশে ২ হাজার ১১১ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

সোমবার করোনা শনাক্ত হয়েছিল ২ হাজার ১৩৯ জনের। এরপর গত মঙ্গলবারও শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই হাজারের বেশি ছিল। মঙ্গলবার ২ হাজার ২১২ জনের দেহে সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এর আগে টানা চার দিন দুই হাজারের বেশি সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল গত আগস্টের শেষ সপ্তাহে। মাঝে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দেড় থেকে দুই হাজারের মধ্যে ছিল।

পরীক্ষার সংখ্যা বিবেচনায় রোগী শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৫৮ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া লোকজনের মধ্যে ১১ জন পুরুষ ও ৬ জন নারী। দেশে এখন পর্যন্ত সংক্রমণ বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৩ শতাংশ।

দেশে করোনায় সংক্রমিত প্রথম রোগী শনাক্তের ঘোষণা আসে চলতি বছরের ৮ মার্চ। প্রথম মৃত্যুর তথ্য জানানো হয় ১৮ মার্চ। জনস্বাস্থ্যবিদেরা বলছেন, দেশের করোনা পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি। এর মধ্যে সরকার আশঙ্কা করছে, শীতে আবার সংক্রমণ বেড়ে যেতে পারে।

Continue Reading

জাতীয়

মাস্ক পরা নিশ্চিতে পরিচালিত হবে ভ্রাম্যমাণ আদালত

নিজস্ব প্রতিনিধি

Published

on

DentalTimes

‘আমরা গতকাল বলে দিয়েছি, যাতে ঢাকাতেও বিভিন্ন জায়গায় মোবাইল কোর্ট বা ল-এনফোর্সিং এজেন্সি (আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী) যাতে আরেকটু শক্ত অবস্থান গ্রহণ করে।’ ঢাকায় স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে অমনোযোগিতার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এ কথা জানান।

আজ সোমবার (১৬ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভার বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত হয়। গণভবন প্রান্ত থেকে প্রধানমন্ত্রী এবং সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন মন্ত্রীরা।

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গ নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে রাজধানীতে মাস্ক পরা নিশ্চিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তা বাস্তবায়নে শক্ত অবস্থানে যাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীগুলো।  আগামী ২/৩ তিনদিনের মধ্যে বিষয়টি দৃশ্যমান হবে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, ‘আজকে ডিজাস্টার নিয়ে একটু আলোচনা হয়েছে। কোভিড নিয়ে বলা হয়েছে, আরেকটু শক্ত অবস্থানে যেতে হবে। ভাইরাসের প্রকোপ একটু বেড়েও যাচ্ছে মনে হচ্ছে। সেজন্য আরেকটু সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলা হয়েছে। ডিজাস্টারকে আরেকটু কম্প্রিহেনসিভ প্রেজেন্টেশনের জন্য ক্যাবিনেটে নিয়ে আসার জন্য বলা হয়েছে।’

Continue Reading

জাতীয়

আন্দোলনরত এমবিবিএস ও বিডিএস শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জ (ভিডিও সহ)

Avatar

Published

on

সেশনজটমুক্ত শিক্ষাবর্ষের দাবিতে আজ ৮ নভেম্বর সকাল ১১ টা থেকে শাহবাগে অবস্থান করছে মেডিকেল ও ডেন্টাল শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনের এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের সরে যাওয়ার জন্য বলেও শিক্ষার্থীরা তাদের দাবীর ব্যাপারে অনড় অবস্থান নেয়। পরর্তীতে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ আন্দোলন শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ করে।

শিক্ষার্থীরা জানান, শান্তিপূর্নভাবে কর্মসূচি পালন করলেও তারা পুলিশের বাঁধার সম্মুখীন হচ্ছে। তবে দুপুর ১.৩০ টার দিকে পুলিশ শিক্ষার্থীদের উপর চড়াও হয়। পুলিশ শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।”

মেয়ে শিক্ষার্থীরাও পুলিশের লাঠিচার্জের শিকার হোন বলে অভিযোগ করছেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের উপর এমন আচরণে ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানিয়েছেন চিকিৎসক সমাজ।

আজ রোববার দাবীর বিষয় নিয়ে সিদ্ধান্ত হবার কথা হলেও এখন পর্যন্ত কোনো সুস্পষ্ট সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি।

Continue Reading

জনপ্রিয়

Enable Notifications From DentalTimesBD    OK No thanks