Connect with us

Uncategorized

COVID-19 মহামারী এবং দাঁত ও মাড়ির যত্ন

DENTALTIMESBD.com

Published

on

লেখা ও সম্পাদনাঃ

ডাঃ এনাম আহমেদ, সহযোগী অধ্যাপক, ডেন্টাল পাবলিক হেলথ (ইউ.ডি.সি), খবর ও প্রকাশনা সম্পাদক (বাডি) এবং

ডাঃ সুকান্ত হালদার আকাশ, ডেন্টাল সার্জন, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক, ডেন্টাল টাইমস।

২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে চিনের উহান শহরে আবিস্কৃত হয় বর্তমান বিশ্বের এবং বিগত শতকের সবচেয়ে ভয়ংকর মহামারী “করোনা ভাইরাস ডিজিস COVID-19”। বিভিন্ন বিজ্ঞানী এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, এই সময়ে প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তাই হাত ধোয়াকেই সবাই গুরুত্বের চোখে দেখছেন কেননা হাত এবং মুখের সংস্পর্শে এই ভাইরাসটি বিস্তার লাভ করে। তবে ভুলে গেলে চলবে না করোনা ভাইরাস মানবদেহে প্রবেশ করে মূলত নাক, মুখ ও চোখের মাধ্যমে। তাই সংস্পর্শের দিকে খেয়াল রাখার পাশাপাশি আমাদের মুখের সাথে সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়ের প্রতিও খেয়াল রাখা প্রয়োজন। তাই এ ব্যাপারে নিম্নোক্ত নির্দেশাবলী মেনে চলা গুরুত্বপূর্ণ।

DentalTimes

১. আপনার টুথব্রাশটি অন্য কারো টুথব্রাশের সংস্পর্শে আসছে কিনা সেটি খেয়াল করুন

সাধারনত ভাইরাসবাহী রোগগুলো সংক্রমনের একটি অন্যতম পথ হলো মুখগহ্বর, নাক ও চোখ। হাত ছাড়া অন্য যে বস্তুটি মুখগহ্বরের সরাসরি সংস্পর্শে আসে তা হলো আমাদের বহুল ব্যবহৃত টুথব্রাশ। সুতরাং এই টুথব্রাশের মাধ্যমেই আপনি সহজে আক্রান্ত হয়ে যেতে পারেন যদি কোন ভাবে আপনার টুথব্রাশটি সংক্রমিত হয়ে থাকে। হতে পারে এই টুথব্রাশটি অন্য কেউ ব্যবহার করার মাধ্যমে কিংবা অন্যের টুথব্রাশের সাথে সংস্পর্শের কারনে। তাই যেখানে আপনি ব্রাশ করার পরে টুথব্রাশটি সংরক্ষন করেন, খেয়াল রাখতে হবে সেখানে যেন অন্য কারো টুথব্রাশ আপনার ব্রাশটিকে স্পর্শ না করতে পারে।

২. দাঁত ব্রাশ করার আগে হাত ধুয়ে নিন

হাত থেকে মুখমন্ডলে সংস্পর্শ এড়ানোর জন্য আপনি হাত ধুচ্ছেন কিন্তু একই হাতে ব্রাশ স্পর্শ করার পরে সেই ব্রাশ যখন আপনি মুখে নিচ্ছেন তা থেকে রোগ সংক্রমনের আশংকা কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। কাজেই ব্রাশ করার আগেও হাত ধোয়ার কথা ভুলবেন না। নিজের একটি রুটিন বানিয়ে ফেলুন। প্রথমে হাত ধুয়ে নিন, তারপর ব্রাশ করুন, ফ্লস করুন এবং মুখ ও হাত ধুয়ে ফেলুন।

৩. ব্রাশ করার পরে টুথব্রাশটি পরিষ্কার করুন

প্রতিবার সাধারণ ব্যবহারের পরে আপনার টুথব্রাশটি উষ্ণ গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

যদি কোন কারনে আপনার করোনা ভাইরাস টেস্ট পজিটিভ আসে সেক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতা প্রয়োজন। কাজেই, প্রথমে আপনার ব্রাশ গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এর পরে একটি গ্লাসে সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইট (ব্লিচ) দ্রবণ তৈরী করে ৩০ মিনিট সম্পূর্ণ ব্রাশ বা ব্রাশের মাথার অংশটুকু ভিজিয়ে রাখুন। ৩০ মিনিট পার হয়ে গেলে, পানি দিয়ে পুনরায় ব্রাশটি ধুয়ে ফেলুন এবং শুকিয়ে রাখুন।

যেভাবে ব্লিচ তৈরী করবেনঃ ৫% সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইটের ১:১০০ অনুপাতের দ্রবণ তৈরী করতে হবে। সুতরাং বাজারে পাওয়া ৫.২৫% সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইট ৫০০ মিলিলিটার পানিতে ১ চা-চামচ (৫ মিলি লিটার) পরিমান মিশ্রিত করে যে দ্রবন তৈরী হবে সেটাই টুথব্রাশ পরিস্কারের জন্য উপযুক্ত ব্লিচ।

৪. টুথব্রাশ হোল্ডার

আপনার টুথব্রাশ যেন অন্য কারো ব্রাশের সংস্পর্শে না আসতে পারে সে জন্য প্রয়োজনে গ্লাস কিংবা জ্যামের জারের মত পাত্র ব্যবহার করতে পারেন এবং ব্যবহারের পর সকলের ব্রাশ আলাদা পাত্রে সংরক্ষন করতে পারেন। বাচ্চাদের ব্রাশগুলোতে অমোছনীয় কালি দিয়ে নাম লিখে রাখতে পারেন। কখনোই আপনার ব্রাশ কাউন্টারটপ কিংবা হ্যান্ড বেসিনে শুইয়ে রাখবেন না। মাঝে মাঝে ডিসওয়াশ বা ডিটারজেন্ট দিয়ে ব্রাশ রাখার পাত্রগুলো পরিস্কার করে ফেলুন।

ব্রাশ ও পাত্রগুলোকে নিরাপদ স্থানে রাখুন।

আপনার টুথব্রাশটি টয়েলেট থেকে দূরে নিরাপদ স্থানে রাখুন। কারন টয়েলেট এর ফ্ল্যাশ করার পরে টয়েলেটের ভেতর থেকে বাস্প বা এরোসল তৈরী হয়। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, করোনাভাইরাস মলের মাধ্যমেও ছড়াতে পারে। তাই এই বাস্প আপনার ব্রাশে স্পর্শ করলে আপনি এর মাধ্যমে ঘরে থেকেও সংক্রমিত হতে পারেন। আর টয়েলেটের ঢাকনা থাকলে ফ্ল্যাশ করার আগে এটি নামিয়ে নিতে ভুলবেন না।

৫. টুথপেস্ট ব্যবহারেও সতর্ক হোন

আপনি বা আপনার পরিবারের অন্য কেউ করোনা আক্রান্ত হলে আপনারা যদি একই টুথপেস্ট ব্যবহার করেন সেক্ষেত্রে টুথপেস্ট এর টিউবটি কখনোই ব্রাশের সাথে ছুঁইয়ে ব্যবহার করবেন না। এতে ব্রাশ থেকে পেস্ট এবং পেস্ট থেকে পুনরাং অন্য আরেকটি ব্রাশ আক্রমনের সম্ভাবনা থাকে। তাই অভ্যাস বদলে ফেলুন। একটি পরিস্কার প্লেট বা পাত্রে টুথপেস্ট নিয়ে সেখান থেকে ব্রাশে লাগিয়ে নিন। হাতের কাছে পাত্র না পেলে পরিস্কার কোন কাপড়ও ব্যবহার করতে পারেন।

৬. দাঁত ব্রাশ করার সময়েও সামাজিক দুরত্ব মেনে চলুন

বাড়ির বেসিনে দাঁত ব্রাশ করার সময় এক সাথে একাধিক মানুষ ব্রাশ করবেন না। কারন গবেষণায় দেখা গিয়েছে টুথপেস্টের ফেনার সাথে ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া বাতাসে প্রবেশ করে এবং তা ওই স্থানে থাকা অন্য কোন ব্যক্তিকে সংক্রমিত করতে পারে।

৭. আপনার টুথব্রাশটি নিয়মিত পরিবর্তন করুন

নিয়ম অনুযায়ী প্রতি তিনমাস অন্তর আপনার টুথব্রাশটি বদলে নতুন টুথব্রাশ ব্যবহার করুন। তিনমাসের মধ্যে যদি টুথব্রাশের আঁশগুলো ক্ষয় হয়ে যায় তবে অতিসত্বর তা বদলে ফেলুন কারন আঁশ ক্ষয় হয়ে যাওয়া ব্রাশ আপনাকে কখনই পরিপূর্ণ পরিচ্ছন্নতা দিতে পারে না। তাছাড়া নিয়মিত পরিবর্তন করলে টুথব্রাশে ব্যাকটেরিয়াও বিস্তার করতে পারে না।

আপনি আক্রান্ত হলে টুথব্রাশ বদলে ফেলুন

আপনি যদি করোনাভাইরাস আক্রান্ত হন বা হবার লক্ষন প্রকাশ পায় তবে আক্রমনের ঝুঁকি কমাতে আপনার টুথব্রাশটি বদলে ফেলুন। যদি আক্রান্ত হয়েই থাকেন, তবে রোগ থেকে সুস্থ হবার সাথে সাথেই আপনার অন্তঃবর্তীকালীন এই ব্রাশটি বদলে আরেকটি ব্রাশ ব্যবহার করুন যেন আপনি পুনরায় আক্রান্ত না হন।

৮. প্রতিদিন দুই দাঁতের মাঝে ডেন্টাল ফ্লস বা ইন্টারডেণ্টাল ব্রাশ দিয়ে পরিস্কার করুন

৯. আপনার ডেন্টিস্টের পরামর্শ অনুযায়ী মাউথওয়াশ ব্যবহার করুন

আপনি যদি ডেন্টিস্টের কাছে যান তবে যেকোন ডেন্টাল চিকিৎসার পূর্বে ১% হাইড্রোজেন পারক্সাইড বা ০.২% – ১% পভিডন আয়োডিন গারগেল ব্যবহার করবেন কেননা এটি আপনার মুখে থাকা জীবানুর পরিমান কমিয়ে দিতে সক্ষম। তাছাড়া নিয়মিত ব্যবহারের জন্য মাউথ ওয়াশে পভিডন আয়োডিন (০.২% – ১%), সিটিলপাইরিডিনিয়াম ক্লোরাইড (০.০৫% – 0.১%), হাইড্রোজেন পারক্সাইড ১%, এসেন্সিয়াল অয়েল  অথবা অ্যালকোহল আছে কিনা সেটি নিশ্চিত করতে হবে। তবে আপনি যদি গর্ভবতী হন কিংবা শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ান সেক্ষেত্রে ডেন্টিস্টের পরামর্শ ব্যতীত পভিডন আয়োডিন যুক্ত মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করা ঝুঁকিপূর্ণ।

১০. আপনার বাথরুম নিয়মিত পরিস্কার রাখুন

আমরা অনেকেই বাথরুমে তোয়ালে, টুথব্রাশ বা জামাকাপড় রাখি যা এই সময়ের জন্য হানিকর। তাই সচেতনতার জন্য বাথরুমের মেঝে নিয়মিত ক্লোরিন যুক্ত উপাদান (ব্লিচ) দিয়ে পরিস্কার করুন।

১১. কোন জিজ্ঞাসা থাকলে আপনার ডেন্টিস্টের সাথে যোগাযোগ করুন

জরুরী প্রয়োজনে কিংবা নিয়মিত আপনার নিকটস্থ বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি) নিবন্ধিত ডেন্টিস্টের সাথে দেখা করা প্রয়োজনীয়। কিন্তু বর্তমানে একটি ডেন্টাল ক্লিনিকে একাধিক মানুষ দেখা করতে আসলে সেটি ভাইরাসের বিস্তার ত্বরাণ্বিত করতে পারে। তাই শুধুমাত্র অতি জরুরী অবস্থায় আপনার ডেন্টিস্টের সাথে দেখা করুন। ক্ষেত্রবিশেষে আপনার এপয়েন্টমেন্ট বিলম্বত বা বাতিল হতে পারে কিন্তু এতে বিচলিত হবেন না। প্রয়োজনে টেলিসেবা গ্রহন করুন।

DentalTimes
ডাঃ এনাম আহমেদ, সহযোগী অধ্যাপক, ডেন্টাল পাবলিক হেলথ (ইউ.ডি.সি), খবর ও প্রকাশনা সম্পাদক (বাডি)

রেফারেন্সসমূহঃ

1. Héctor J. Rodríguez Casanovas (2020). Oral Hygiene and COVID-19, Published in Spanish at Gaceta Denta.

2.  Tooth Brushing Coronavirus and COVID 19(2020). Dental Health Foundation Ireland.

3. Wetzel WE, Schaumburg C, Ansari F, Kroeger T, Sziegoleit A (2005). Microbial contamination of tooothbrushes with different principles of filament anchoring. J Am Dent Assoc; 136:758‐65.

4. Sogi SH, Subbareddy VV, Kiran SN (2002). Contamination of tooth brushes at different time 2intervals and effectiveness of various disinfection solutions in reducing the contamination of tooth brush. J lndian Sot Pedo Prev Dent; 20:81‐5.

5. Sogi SH, Subbareddy VV, Kiran SN (2002). Contamination of tooth brushes at different time 3intervals and effectiveness of various disinfection solutions in reducing the contamination of tooth brush. J lndian Sot Pedo Prev Dent; 20:81‐5.

6. Warren DP, Goldschmidt MC, Thompson MB, Adler -Storthz K, KenneHJ(2001). The effects of toothpastes on the residual microbial contamination of toothbrushes. J Am Dent Assoc; 132:1242-5.

7. Sammons Rl, Kaur D, Neal P. Bacterial survival and biofilm formation on conventional and antibacterial toothbrushes. Biofilms 2004; 1:123-30.

8. Peng X, Xu X, Li Y, Cheng L, Zhou X, Ren B (2020). Transmission routes of 2019-nCoV and 6controls in dental practice. Int J Oral Sci. 2020;12(1):9. doi:10.1038/s41368-020-0075-9

9. Frazelle MR, Munro CL (2012). Toothbrush contamination: a review of the literature. Nurs Res Pract. doi:10.1155/2012/420630

10. Naik R, Ahmed Mujib BR, Telagi N, Anil BS, Spoorthi BR (2015). Contaminated tooth brushespotentialbthreat to oral and general health. J Family Med Prim Care.;4(3):444–448. doi:10.4103/2249-4863.161350

Continue Reading
Advertisement
Click to comment

Uncategorized

যশোর : ২২ চিকিৎসক-নার্সসহ ২৮ জন কোয়ারেন্টাইনে

DENTALTIMESBD.com

Published

on

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দুই রোগীর সংস্পর্শে আসায় যশোর জেনারেল হাসপাতালের ১১ চিকিৎসক, ১১ নার্স মোট ২৮ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। বুধবার হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কের জারি করা অফিস আদেশে এই কথা জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো এসব ডাক্তার ও নার্স করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়া রোগীদের কনটাক্টে এসেছিলেন। হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আরিফ আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পর্যায়ক্রমে এই হাসপাতালের সবার নমুনা পরীক্ষা করতে বলা হয়েছে।

ডা. দিলীপ কুমার রায় বলেন, করোনা আক্রান্ত দুই রোগীর সংস্পর্শে যেসব ডাক্তার, নার্স ও কর্মচারী এসেছিলেন তাদের শনাক্ত করে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। ১১ জন ডাক্তার ও ১১ জন নার্স ছাড়াও পরিচ্ছন্নতাকর্মী, ওয়ার্ড বয় ও আয়া মিলিয়ে মোট ২৮ জনকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ হবে ১৪ দিন। এই সময়কালে তাদের সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে করোনারি কেয়ার ইউনিট ও মেডিসিন ওয়ার্ড লকডাউন করে দেন। গুরুত্বপূর্ণ ইউনিট দুটি জীবাণুমুক্ত করার পদক্ষেপও নেওয়া হয়। ওই দুই স্থানে চিকিৎসাধীন রোগীদের স্থানান্তর করা হয় অন্য ওয়ার্ডে।

গত কয়েকদিনে শনাক্ত হওয়া করোনা পজেটিভদের বেশ কয়েকজনকে যশোর টিবি হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। যারা ওই হাসপাতালে যেতে অনাগ্রহ প্রকাশ করেছেন, তাদের নিজ নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন রাখা হয়েছে।

যশোর টিবি হাসপাতালকে অস্থায়ী করোনা হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এখানে করোনাভাইরাস আক্রান্তদের সেবার কাজে নিয়োজিতরা পাশেই নাজির শঙ্করপুরে অবস্থিত শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের ডরমেটরিতে অবস্থান করছেন।

Continue Reading

Uncategorized

যে চারটি বেসরকারি হাসপাতালে হবে করোনাভাইরাস পরীক্ষা

DENTALTIMESBD.com

Published

on

বেসরকারি হাসপাতালে হবে করোনাভাইরাস পরীক্ষা

দেশে কোভিড-১৯ এর প্রকোপ বাড়তে থাকায় পরীক্ষার আওতা বাড়ানোর জন্য প্রথমবারের মত চারটি বেসরকারি হাসপাতালকে করোনাভাইরাস পরীক্ষা এবং চিকিৎসার অনুমতি দিয়েছে সরকার।

এর মধ্যে ঢাকার এভারকেয়ার হাসপাতাল (সাবেক অ্যাপোলা), স্কয়ার হাসপাতাল ও ইউনাইটেড হাসপাতাল শুধু তাদের ভর্তি রোগীদের নমুনা পরীক্ষা করবে।

আর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ইউএস-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতাল বাইরের রোগীদের নমুনাও পরীক্ষা করতে পারবে।

বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি বলেন, “তারা যে নমুনা পরীক্ষা করবেন আমরা তা আগামীকাল থেকে অথবা যখন তারা কাজ শুরু করবেন তখন থেকে হিসাবে যুক্ত করব।”

তিনটি হাসপাতালকে বাইরের রোগীর নমুনা পরীক্ষার অনুমতি না দেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে নাসিমা সুলতানা বলেন, “অনেক ক্ষেত্রে ফলোআপে সমস্যা হতে পারে, সে কারণে তাদের এখনও তাদের আউটডোর পেশেন্টের নমুনা পরীক্ষার অনুমতি দেওয়া হয়নি।”

এই চারটি বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে দেশে সব মিলিয়ে এখন ২৯টি মেডিকেল প্রতিষ্ঠানে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থা হল।

বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে রেকর্ড ৬৪১ জনের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে ৭১০৩ জন হয়েছে। এই সময়ে আরও আটজনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৬৩ জন হয়েছে।

Continue Reading

Uncategorized

২৪ ঘণ্টায় আরও ৮ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৬৪১

DENTALTIMESBD.com

Published

on

অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা

দেশে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও আটজন মারা গেছেন। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট ১৬৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হিসেবে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ৬৪১ জন। ফলে দেশে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা সাত হাজার ১০৩ জন।

বুধবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়। অনলাইনে বুলেটিন উপস্থাপন করেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও চার হাজার ৯৬৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সব মিলিয়ে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৯ হাজার ৭০১টি। নতুন যাদের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে, তাদের মধ্যে আরও ৬৪১ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ফলে মোট করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন সাত হাজার ১০৩ জন। আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে মারা গেছেন আরও আটজন। ফলে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬৩ জনে। এছাড়া সুস্থ হয়েছেন আরও ১১ জন। ফলে মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫০ জন।

যারা নতুন করে মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ছয়জন পুরুষ এবং দুজন নারী। ছয়জন ঢাকার বাসিন্দা এবং দুজন ঢাকার বাইরের। বয়সের দিক থেকে চারজন ষাটোর্ধ্ব, দুজন পঞ্চাশোর্ধ্ব এবং দুজন ত্রিশোর্ধ্ব।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে সবাইকে ঘরে থাকার এবং স্বাস্থ্য অধিদফতর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ-নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানানো হয় বুলেটিনে।

প্রায় চার মাস আগে চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস এখন গোটা বিশ্বে তাণ্ডব চালাচ্ছে। চীন পরিস্থিতি অনেকটাই সামাল দিয়ে উঠলেও এখন মারাত্মকভাবে ভুগছে ইউরোপ-আমেরিকা-এশিয়াসহ বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চল। এ ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের প্রায় সাড়ে ৩১ লাখ। মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে দুই লাখ ১৮ হাজার। তবে নয় লাখ ৬১ হাজারের বেশি রোগী ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর প্রথম দিকে কয়েকজন করে নতুন আক্রান্ত রোগীর খবর মিললেও এখন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে এ সংখ্যা। বাড়ছে মৃত্যুও।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। নিয়েছে আরও নানা পদক্ষেপ। যদিও এরই মধ্যে সীমিত পরিসরে ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকার কিছু পোশাক কারখানা সীমিত পরিসরে খুলতে শুরু করেছে। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিত করা না গেলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকবে কি-না, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

অন্যান্য

Continue Reading

জনপ্রিয়

Enable Notifications From DentalTimesBD    Ok No thanks